• House E-135, Road 9/2, Dakhin Banasree, Goran, Dhaka-1219
  • +880 1890 084 108

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি?

গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কে সবাই আমরা কম বেশি পরিচিত। তথ্য ও রঙ এর সংশ্লেষণ হল ডিজাইন। ডিজাইন হলো মানুষের কল্পনা,ভাব,চিন্তা,তথ্য ও পরিকল্পনাকে টেকনোলজির সহযোগীতায় রং ও ছবি দিয়ে দৃশ্যমান করা। বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন যেমন ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর, ইনডিজাইন, পাওয়ার পয়েন্ট ইত্যাদির মাধ্যমে লোগো, ফ্লায়ার, পেজ-লেআউট, বিজ্ঞাপণ, ব্রোশার, ম্যাগাজিন এবং কর্পোরেট রিপোর্ট এবং নকশা তৈরি করা। টাইপোগ্রাফি, ফটোগ্রাফি এবং চিত্রনাট্য ব্যবহার করে কল্পনার সাথে বাস্তবের সমন্বয় করা।আসলে পৃথিবীতে ডিজানের বাহিরে কিছুই নেই,সব জিনিসের নিজস্ব একটা ডিজাইন আছে।সেই ডিজাইনের ডিজিটাল পদ্ধতি হল গ্রফিক্স ডিজাইন। আগে মানুষ হাতে ব্যানার,ছবি,ভাস্কার্য,মূর্তি ইত্যাদি তৈরি করত এবং আঁকত ।আর এখন সেই একই কাজ আরো আপডেট হল এবং আরো উন্নত হল। সৃষ্টির শুরু থেকেই সবকিছুতে ডিজাইন ছিল। মানুষের হাতে ডিজাইন করা শুরু হয় আনুমানিক খ্রিষ্টপূর্ব ৫০০০ বছর আগ থেকে। তবে নিদর্শন হিসেবে বিভিন্ন গুহায় যে প্রমাণ পাওয়া যায় তাতে বলতে হয় এর শুরু অনেক আগে থেকেই। আর এটা শুরু হয়েছে মানুষের প্রয়োজনেই। সেখান থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত অনেক বছর চলে গেছে। ডিজাইন মূলত মানুষের প্রয়োজনেই তা মনের খোরাক মেটানোর জন্য হোক বা পেশা হোক বা ব্যবসায়িক কারন হোক মূলত মানুষের প্রয়োজনেই ডিজাইন। এক কথায় বলা চলে, ডিজাইন ছিল,আছে এবং থাকবে । আগামী দিন শুধু ডিজাইনের ।

আপনি কেন গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সটি করবেন ??

১. সৃজনশীল পেশাঃ গ্রাফিক্স ডিজাইনে মুখস্থ বিদ্যা কিংবা কপি-পেস্টের সুযোগ নেই বরং এখানে আপনি আপনার নিজের সৃজনশীলতাকে প্রকাশ করতে পারবেন।

২. ফ্রিল্যান্সিং এবং আউটসোর্সিংঃ  ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা অনেক বেশি, যার ফলে আয়ের পরিমাণও বেশী। গ্রাফিক্সের চাহিদা এতটাই বেশী যে, শুধু গ্রাফিক্সের কাজের জন্য বেশ কিছু জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেট প্লেসও রয়েছে।

৩. ডিজাইন বিক্রিঃ আপনি একবার ডিজাইন তৈরি করলে আজীবন সেই ডিজাইন থেকে অর্থ আয় করতে পারবেন। বর্তমান সময়ে অনলাইনে ডিজাইন বিক্রি করার বেশ কিছু জনপ্রিয় ওয়েবসাইট রয়েছে।

৪. স্বাধীনতাঃ আপনি যখন অনলাইনে ডিজাইন বিক্রি করবেন, তখন আপনাকে কারো হুকুম মানতে হবে না। কিংবা কোনও সুনির্দিষ্ট সময় অনুযায়ী কাজ করতে হবে না। আপনি কখন ডিজাইন করবেন, কিভাবে করবেন, এর সম্পূর্ণটাই আপনার নিজের ইচ্ছার উপর নির্ভর করে।

৫. চাকুরী করার সুযোগঃ গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের চাকুরীর সুযোগ সুবিধা এবং বেতনের পরিমাণ অনেক বেশি হয়ে থাকে।বাংলাদেশের কোম্পানিগুলোতে প্রফেশনাল হলে ১ লক্ষ টাকার উপরে বেতন পাওয়া যেতে পারে।

৬. কাজের ক্ষেত্র এবং আয়ের পরিমাণ বেশিঃ গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজের ক্ষেত্র কতটা বেশি আশা করি নতুন করে আর বলতে হবে না। চাকুরী এবং ফ্রিল্যান্সিং করার পাশাপাশি আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর কোচিং, ইনস্টিউট কিংবা আইটি ফার্ম দিতে পারবেন। রিমোট জব করার সুবিধা রয়েছে গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসাবে।

৭. গ্রাফিক্স ডিজাইন রোবট বা মেশিন করতে পারে নাঃ সৃজনশীল কাজ সাধারণত মেশিন কিংবা রোবট করতে পারে না। গ্রাফিক্সের কাজ সৃজনশীল হওয়াতে অদূর ভবিষ্যতেও এই পেশা বেশ চাহিদা সম্পন্ন থাকবে।

৮. শিক্ষক হিসাবে কাজ করার সুযোগঃ নতুন নতুন মানুষকে আপনি গ্রাফিক্সের কাজ শেখাতে পারেন। এছাড়া শেখানোর মাধ্যমে আপনার আয়ের সুযোগ হবে।

০৯. উচ্চ শিক্ষার প্রয়োজন নেইঃ গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য প্রয়োজন শুধু দক্ষতার। গুগল, অ্যাপলের মত বড় বড় কোম্পানি তাদের গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজের জন্য অনেক নতুন নতুন লোক নেয় যাদের অনেকের উচ্চ শিক্ষা নেই।

 লাইভ ক্লাসের সুবিধাঃ

  • প্রতিটি লাইভ কোর্স নতুন থেকে শুরু করে এডভান্স লেভেল পর্যন্ত ।
    • কোর্স শেষে কোথায় কিভাবে ইনকাম করবেন সেই জন্য থাকছে অতিরিক্ত বেসিক ফ্রিলান্সিং কোর্স।
    • লাইভ ক্লাস মিস করলে পরের দিন লাইভ ক্লাস রেকর্ড ভিডিও ও প্রয়োজনীয় ফাইলসমুহ পাবেন।
    • সম্পূর্ণ লাইভ কোর্সের রেকর্ড ভিডিও আপনি পাবেন সম্পূর্ণ ফ্রীতে।(যা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান লাইভ কোর্স ফি এর সমান বা তার চেয়ে বেশি দামে বিক্রি করে)
    • প্রতিটি লাইভ ক্লাসে থাকছে কোন কিছু না বুঝলে সরাসরি প্রশ্ন করার সুযোগ।
    • প্রফেশনাল্ভাবে সফল না হওয়া পর্যন্ত সাপোর্ট ।
    • প্রতিটি ক্লাসে থাকসে  Home Task and Evolution .
    • কোর্স শেষে সার্টিফিকেট প্রদান ।

আমি কিভাবে কোর্সটি করব ?

আপনি প্রথমে যেই কোর্সটি করতে চান সেই কোর্সে ক্লিক করলে যেই পেইজটি পাবেন সেইখানে JOIN COURSE/ENROLL COURSE একশন বাটনে ক্লিক করবেন এবং আগে থেকে রেজিস্ট্রেশন করা না থাকলে নতুন করে সাইন আপ করে নির্দেশনা অনুযায়ী পেমেন্ট করলেই আপনার জয়েন কনফার্ম হয়ে যাবে ।আরো বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুণ, ( এইখানে একটা ভিডিও ক্লিপ এর লিংক থাকবে যার মাধ্যমে জয়েনিং এবং পেমেন্ট মেথড বিস্তারিত বুঝিয়ে দেবে।যা হোম পেইজে থাকবে । )

কাজের/আয়ের ক্ষেত্রঃ

  • ফাইভার ও আপওয়ার্কে ফ্রিলান্সিং
  • এনভাটো মার্কেটে কাজের সুযোগ
  • আইটি কোম্পানিতে গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে চাকরি

লার্নিং প্লাটফর্মে শিক্ষক হিসেবে কাজের সুযোগ ইত্যাদিসহ আরো অনেক।